১৭ জুন, ২০১৯ | ৩ আষাঢ়, ১৪২৬ | ১৩ শাওয়াল, ১৪৪০


বিবিএন শিরোনাম
  ●  ঈদগাঁও নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে আইনি নোটিশ   ●  উখিয়ায় ৪ যুবক সহ নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল জব্দ   ●  সেনাবাহিনীকে জনগণের পাশে দাঁড়াতে হবে: প্রধানমন্ত্রী   ●  কক্সবাজার কারাগারে অনুসন্ধানের শুরুতেই দুর্নীতির প্রমাণ পেলো দুদক   ●  টেকনাফে বন্দুক যুদ্ধেে নাইক্ষ্যংছড়ি ছাত্রলীগ নেতা নিহত   ●  ঈদগাঁও থেকে কক্সবাজার শহরের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী রফিকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার   ●  ঢাকার শাহবাগ থেকে ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেপ্তার   ●  যেকোনো প্রকার ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকুন : প্রধানমন্ত্রী   ●  সেই কিশোরের মৃত্যুদণ্ড বাতিল করলো সৌদি আরব   ●  টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

গোমাতলীর মেধাবী ছাত্র শাহ আলমকে বাঁচাতে আকুল আবেদন!

কক্সবাজার সদর উপজেলার পোকখালী ইউনিউনের উত্তর গোমাতলী (৭নং ওয়ার্ড) চরপাড়ার হতদরিদ্র আবদুল মোনাফের বড় পুত্র মোঃ শাহ আলম চিকিৎসার অভাবে মৃত্যুপথ যাত্রী। তাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছে তার পরিবার। খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, অসাধারন মেধাবী শাহ আলমের বাবা-মার স্বপ্ন ছিল ছেলেকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করবে। তবে সাধ ছিল সাধ্য ছিলনা। তারপরও এলাকাবাসির সহযোগিতা শাহ আলমের নিজ প্রচেষ্টায় অনেক স্বপ্ন নিয়ে ভর্তি হয়েছিল অনার্সে। কিন্তু তখনই বড় বাঁধা হয়ে উঠে মানষিক অজানা রোগ। দীর্ঘ প্রায় ১বছর চিকিৎসা করে সাময়িক সুস্থ হলেও অভাব-অনটনের কারনে চিকিৎসা বন্ধ হয়ে যায়। ৬ সদস্যের সংসারে যেখানে দু’বেলা দু’মোটো ভাত জুটেনা, সেখানে হতদরিদ্র বাবা আবদুল মোনাফের পক্ষে ছেলের চিকিৎসা করানো সম্ভব হচ্ছেনা। যার ফলে চিকিৎসার অভাবে ফের অসুস্থ হয়ে পড়ে। বর্তমানে সে মৃত্যু পথযাত্রী। তাকে একনজর দেখলে কেউ চোখের পানি ধরে রাখতে পারবে না। দ্রুত চিকিৎসার জন্য এলাকাবাসী ও স্থানীয়রা অার্থিকভাবে সহযোগিতা চালিয়ে আসছেন। তার চিকিৎসক বলেছেন, সুচিকিৎসা পেলে শাহআলম সুস্থ হয়ে উঠবে। তার চিকিৎসার জন্য লক্ষাধিক টাকার প্রয়োজন। তাই এ মেধাবী ছেলেকে বাঁচাতে সমাজের সকল বিত্তশালী ও সচ্ছল মানুষের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে তার পরিবার। ‘আসুন শাহ আলমকে বাঁচাতে করি অঙিকার। আপনার সহায়তায় হয়ত বেঁচে যাবে একটি তরতাজা প্রান ও পরিবার।’ তাকে সহযোগিতা করতে চাইলে যোগাযোগ করুন ০১৮৫৯ ২২০৪১৭ (বিকাশ)। শফিউল আলম, শাহ আলমের ছোট ভাই।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।