২০ জুলাই, ২০১৯ | ৫ শ্রাবণ, ১৪২৬ | ১৫ জিলক্বদ, ১৪৪০


গোরাকঘাটা পোস্ট অফিসটি ঝুকিতে পরিণত যে কোন সময় ঘটতে পারে দূর্ঘটনা

মহেশখালী উপজেলা ৮ টি ইউনিয়ন ১টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। প্রত্যেক ইউনিয়নের জনগনের যোগাযোগের অন্যতম সরকারী প্রতিষ্টান গোরকঘাটা পোস্ট অফিস। স্বাধীনতার পরবর্তীতে স্থাপন করা পোস্ট অফিস ভবনটি বর্তমানে মৃত্যুর ঝুকি ও আতংকের স্থানে পরিনত হয়েছে। চার পাশের সীমানা প্রাচীর যেমন অরক্ষিত তেমনী ভবনের ভিতরে খন্ড খন্ড চাদের আস্ত ভেঙ্গে গেছে। প্রাণ ভয়ে কোন মতে কর্মকর্তা কর্মচারীগণ অফিসের কাজ চালিয়ে যায়। অফিস টাইম অতিবাহিত হলে ও সাধারণ গ্রাহকগণ সহজে পোস্ট অফিসে প্রবেশ করতে ভয় পায়। যারা একবার পোস্ট অফিসটির ছাদের দিকে থাকায় তারা সহজে পোস্ট অফিসে আসতে চায় না। গোরকঘাটা মৌজায় ১৪ শতক জমির উপর গোরকঘাটা বাজারের পুরাতন থানা সংলগ্ন ৭ টি কক্ষ নিয়ে গোরকঘাটা প্রধান পোস্ট অফিসটি যার পোস্ট কোড নং- ৪৭১০,একদিকে যেমন দরজা জানালা অরক্ষিত তেমনী ছাদের উপর বড় বড় আস্তর খসে পড়ে রটের ঝালি দেখা যাচ্ছে । সরকারী বেসরকারী গ্রাহকদের প্রয়োজনীয় কোটি টাকা মূল্যর ডকুমেন্ট ছাদের পানি পড়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে দিনের পর দিন। একদিকে ঝুকিপূর্ন পোস্ট অফিস ভবন অপরদিকে জনবলের অভাব। পোস্ট মাস্টার একজন থাকলে ও ৩ অপারেটরের পদ শূণ্য, পোস্টম্যান ২ জনের স্থলে আছে ১জন। একজন পেকার পদ শূন্য, সহকারী পরিদর্শক পদটি পোস্ট অফিসের যাত্রা থেকে খালি। ঝাডুদার আর নৈশপ্রহরী পদায়ন থাকলেও অনেক কর্মকর্তা করমচচারী পদশূন্য। দ্রুত মহেশখালী ডিজিটাল আইল্যান্ড এর প্রধান পোস্ট অফিসটি নতুন ভবন তৈরী করা না হলে যে কোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনার শিকার হতে পারে কর্মকর্তা কর্মচারী ও সাধারন গ্রাহক। এব্যাপারে, গোরকঘাটা পোস্ট অফিসের পোস্ট মাস্টার কানুরাম দে জানান, বিগত সময়ে অনেক বার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করেছি। এখনো কোন ধরনের ব্যবস্থা হয়নি।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।