১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১ আশ্বিন, ১৪২৬ | ১৬ মুহাররম, ১৪৪১


আল্লাহ্ দান নার্সারি করে স্বাবলম্বী আবুল হাসেম

মোঃ নাজমুল হুদা,লামা:সবুজ শ্যামল ছায়ার তৃষ্ণা মেটাতে ও জলবায়ুর বিরূপ প্রভাব থেকে পরিবেশকে মুক্ত করতে লামা উপজেলা গজালিয়া ইউনিয়নের মুসলিম পাড়া কৃষক আবুল হাসেম  গড়েছেন বিভিন্ন প্রজাতির গাছের নার্সারি। নার্সারি করে পরিবেশ ও প্রকৃতির অকৃত্রিম বন্ধু হিসেবে তিনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কবরস্থান, মাঠ, ছাত্রছাত্রী ও বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যে চারা বিতরণ করে থাকেন। এ জন্য তিনি পরিবেশের বন্ধু হিসেবে ২০১৫ সাল থেকে বৃক্ষ ও ফলদ মেলা থেকে পেয়েছেন পুরস্কার এ ক্রেষ্ঠ। সরেজমিনে  “আল্লাহ দান নার্সারি” নামে  নার্সারীতে লামা উপজেলা,  চকরিয়া উপজেলার বমুবিলছড়ি ইউনিয়নে গ্রামে গিয়ে জানা যায়, তার নার্সারি করে স্বাবলম্বী হওয়ার কাহিনী। এক সময় আবুল  হাসেম এর  পরিবারে অভাবের কারণে ‘নুন আনতে পান্তা ফুরায়’ অবস্থা থাকার জন্য লেখাপড়া করার সৌভাগ্য হয়নি। দরিদ্র বাবার উপার্জনে ৬ সদস্যের পরিবারে অন্ন-বস্ত্রের সংস্থান করা কষ্টসাধ্য হওয়ায় ৪০ বছর বয়সে হাসেম অন্যের বাড়িতে কাজ করতে যেতে হয়। এভাবে একটানা ১৫-১৬ বছর অন্যের বাড়িতে কাজ করে পরিবারকে সাহায্য করেন। কীভাবে পরিশ্রম করে নিজের পায়ে দাঁড়ানো যায় সে ভাবনায় হাসেম দিশেহারা হয়ে পড়েন। এভাবে কেটে যায় আরও একটি বছর। এক সময় আবুল হোসেনের নার্সারি দেখে হাসেমের মনে স্বপ্ন জাগে তিনিও নার্সারি করবেন। বর্তমানে অভিজ্ঞ আবুল হোসেনের পরামর্শক্রমে তিনি বাড়ির চারপাশে শুরু করেন নার্সারি। প্রথমে ফলদ ও বনজ মিলিয়ে ৫ হাজার চারার বীজ রোপণ করেন। চারাগুলো বড় হলে ভ্যান ও মাথায় করে ৫ হাজার চারা বমুবিলছড়ি  ও আশপাশে ও লামা বাজারে বিক্রি করে খরচ বাদে ২০ হাজার টাকা লাভ করেন। পরের বছর পার্শ্ববর্তী বাড়ির হামিদ আলীর কাছ থেকে ২৫ শতাংশ জমি লিজ নিয়ে ১০-১৫ হাজার বিভিন্ন জাতের চারা উৎপাদন করেন। এভাবে কেটে যায় একটি বছর। সে বছর ৪৫ হাজার টাকার চারা বিক্রি করেন। আস্তে আস্তে বাড়তে থাকে তার নার্সারির পরিধি। বর্তমানে হাসেম ১৩ বছরে ১৩ বিঘা জমিতে গড়ে তুলেছেন বিশাল আকারের নার্সারি। নার্সারি করে সে এখন নিজেই স্বাবলম্বী। তার সংসারে স্বচ্ছতা ফিরে এসেছে। বর্তমানে তার  নার্সারিতে গাছের সংখ্যা ২ লাখ। তার নার্সারিতে প্রতিদিন ২-৪ জন শ্রমিক কাজ করছেন। লামা উপজেলা ও বমুবিলছড়ি ইউনিয়নে তথা চকরিয়াসহ দেশের বিভিন্ন উপজেলায় তার নার্সারির চারা যায়। হাসেম  জানান, নার্সারি আমাকে শুধু স্বাবলম্বী করেনি, আমার আর্থসামাজিক অবস্থারও ইতিবাচক পরিবর্তনও ঘটিয়েছে। হাসেমের  নার্সারিতে রয়েছে আম জাম লিচু কাটাল পাইনা মালাসহ অনেক ফলের গাছের সমারোহ। এক্ষেত্রে তার মত এরকম নার্সারী করে সমাজে অনেকে আত্মনির্ভরশীল হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।তবে এক্ষেত্রে সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়ো

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।





আপনার মতামত লিখুন :

error: Content is protected !!