২১ অক্টোবর, ২০১৯ | ৫ কার্তিক, ১৪২৬ | ২১ সফর, ১৪৪১


বিবিএন শিরোনাম

উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২ মাস ধরে এক্সরে বিভাগ বন্ধ! 

উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক্সরে  বিভাগ দুই মাস ধরে বন্ধ রয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীরা এক্সরে করতে না পেরে চরম দুর্ভোগ সহ সঠিক রোগ নির্ণয়ে  বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে।
 উখিয়ার তিন লাখ মানুষের একমাত্র চিকিৎসা সেবার ঠিকানা হচ্ছে এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি। প্রতিটি জেলা উপজেলা হাসপাতালগুলো দিন দিন মানোন্নয়ন হলেও কেন যেন এ হাসপাতালটি পিছিয়ে পড়েছে। বিশেষ করে দুই মাস যাবৎ এক্সরে বিভাগটি বন্ধ থাকায় পুরো চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ার উপক্রম হয়েছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান এক্সরে বিভাগ বন্ধ থাকার বিষয়টি সত্যতা  শিকার করে জানান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কর্তৃক প্রদত্ত ডিজিটাল এক্সরে মেশিন স্থাপন করতে গিয়ে ঠিকাদারের গাফিলতির কারণে এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। তিনি আরো বলেন ঠিকাদার পরিবর্তন করে এখন নতুন ঠিকাদার কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। অচিরেই দাতা সংস্থার    দেওয়া   ডিজিটাল এক্সরে  মেশিন এবং হাসপাতালের নিজস্ব   চালু থাকা মেনুয়াল এক্সরে মেশিনটি চালু করা হবে।
এদিকে রাজাপালংয়ের দরগাহ বিল  ও ভালুকিয়ার তুলাতুলি গ্রামে কয়েকজন রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে এক্সরে করতে না পেরে বিভিন্ন জায়গায় ছোটাছুটি করতে দেখা গেছে।
 হরিণমারা গ্রামের সুরত আলম ও তুতুর বিল গ্রামের আব্দুল আলিম জানান হাড় ভাঙ্গার চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে আসলে ডাক্তার এক্সরে করার এডভাইস দেন। কিন্তু হাসপাতালে এক্সেলে বিভাগ বন্ধ থাকায় আমরা যথাযথ চিকিৎসা সেবা নিতে পারছিনা।
 উখিয়ার নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি এ প্রতিবেদককে জানান নতুন ডিজিটাল মেশিন স্থাপন করার নামে কতৃপক্ষ কেন হাসপাতালের নিজস্ব   চালু থাকা এক্সরে মেশিন বন্ধ করে রাখলো। এটা খুব দুঃখজনক। কর্তৃপক্ষের উচিত ছিল এক্সরে মেশিন বন্ধ না করে এক্সরে বিভাগটি সচল রাখা।
প্রান্তিক এলাকা হতে আসা সুবিধা বঞ্চিত রোগীদের দাবি অবিলম্বে উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক্সরে বিভাগটি দ্রুত চালু করে   চিকিৎসা ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনা। এ ব্যয়পারে সিভিল সার্জনের  সুদৃষ্টি কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।





আপনার মতামত লিখুন :