১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ৪ আশ্বিন, ১৪২৬ | ১৯ মুহাররম, ১৪৪১


বিবিএন শিরোনাম
  ●  ৯ থেকে ৩০ অক্টোবর উপকূলে মাছ ধরা নিষিদ্ধ   ●  রোহিঙ্গাদের পাসপোর্টে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   ●  জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ   ●  টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গাসহ নিহত ৩   ●  টেকনাফে জন্ম নিবন্ধন সনদ জালিয়াতির অভিযোগে উদ্যোক্তা সহ আটক ২   ●  পেকুয়ায় ভাড়া বাসা থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার   ●  চকরিয়ায় বন্ধুর ছোটবোনকে ধর্ষণ, যুবক গ্রেফতার   ●  ৩৬ ঘন্টায় বিশ্বজুড়ে ছড়াতে পারে ফ্লু, মারা যেতে পারে ৮ কোটি মানুষ   ●  ঈদগাঁওতে সড়ক ও জনপথ বিভাগের শত কোটি টাকার জমি দখল করে স্থাপনা   ●  টেকনাফে ২১০ টি মিয়ানমারের সীমকার্ড সহ ৩ রোহিঙ্গা আটক

খুটাখালী ইউনিয়ন আ’লীগের একজন কর্মবীর বেলাল আজাদ!

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ভিশন বাস্তবায়নে নিবেদিত প্রাণ চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ ও একজন কর্মবীরের নাম এম বেলাল আজাদ। তিনি খুটাখালী ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে স্বচ্ছতার সাথে পরিচালনার মাধ্যমে ব্যাপক ভূমিকা রেখে সব মহলের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। কক্সবাজার জেলায় শিক্ষা দিক্ষায় অগ্রসর ইউনিয়ন হিসেবে পরিচিত খুটাখালী। চকরিয়া উপজেলার সর্বশেষ দক্ষিনের এক জনপদের নাম খুটাখালী ইউনিয়ন। এই ইউনিয়নে জন্মগ্রহণ করেন এম বেলাল আজাদ। স্কুল জীবন থেকে শুরু করেন ছাত্র রাজনীতি। কলেজ শেষে কিছুদিন শিক্ষকতা পেশা হিসাবে কর্ম জীবন শুরু করেন। পরে অবশ্য আমজনতার চাপের মুখে এই ছাত্রনেতাকে রাজনীতির হাল ধরতে হয়। তার রাজনীতির গুরু সেই সময়ের ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি, ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আলহাজ্ব নুরুল আবছার হেলালী। যিনি পরবর্তীতে অবশ্য দুই বার চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি হিসাবে দু দশক দায়িত্বে ছিলেন। সাধারণ জনতার প্রিয় নেতা নুরুল আবছার হেলালীর মৃত্যুর পর এম বেলাল আজাদের পক্ষে জনস্রোত সৃষ্টি হয়। এরই ধারাবাহিকতায় আশার আলো দেখতে থাকে খুটাখালী ইউনিয়নের জনগণ। এম বেলাল আজাদ জনপ্রিয় নেতা হওয়ার কারণে দীর্ঘদিন ধরে ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারন সম্পাদকে রয়েছেন। যিনি সবার কাছে বেলাল মাষ্টার হিসাবে পরিচিত। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পরিক্ষিত সৈনিক, স্বাধীনতার চেতনা বাস্তবায়নে এবং এলাকার উন্নয়নে তিনি নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। নানা গুণের অধিকারী এম বেলাল আজাদ তার কর্মময় উন্নয়নশীল কাজের অবদান স্বরূপ ইতোমধ্যে বেশ কিছু শিক্ষা প্রতিষ্টানের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য পদও লাভ করেন। খুটাখালী ইউনিয়নকে উন্নয়নের রোল মডেল করতে ইতোমধ্যে চকরিয়া-পেকুয়ার এমপি আলহাজ্ব জাফর আলম, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী ও উপজেলা আ’লীগ সাধারন সম্পাদক গিয়াস উদ্দীন চৌধুরীর সাথে তার ঐকান্তিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন। সরকারের উচ্চ মহলের সার্বিক সহযোগিতাসহ এলাকার জনগণের সমর্থনে তিনি বিভিন্ন উন্নয়নমুখী কার্যক্রম সাফল্যের সাথে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। আসছে ইউনিয়ন আ’লীগের কাউন্সিলে আবারো তিনি সাধারন সম্পাদক মনোনয়ন প্রত্যাশী এবং বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনাময়ী প্রার্থী। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ইউনিয়ন আ’লীগ সাধারন সম্পাদক এম বেলাল আজাদ বলেন, ইউনিয়ন আ’লীগে যতক্ষণ দায়িত্বে আছি এলাকার উন্নয়নে নিবেদিত ভাবে কাজ করে যাবো। কাজের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের সমর্থন প্রত্যাশা করি। জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন বাস্তবায়নে এলাকার উন্নয়নে সহযোগি হিসেবে কাজ করছি। এখন মানুষ সচেতন, তাই গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল সমর্থনে আওয়ামী লীগ আবারো ক্ষমতায় এসেছে। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ও ইউনিয়ন আ’লীগের কান্ডারি হিসাবে আবারো ইউনিয়ন কাউন্সিলে আমি সকলের নিকট দোয়া ও সমর্থন প্রত্যাশী। নিম্নে এম.বেলাল অাজাদের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি তুলে ধরা হলোঃ প্রকৃতপক্ষে তিনি একজন অাওয়ামী এবং মুক্তিযুদ্ধা পরিবারের সন্তান। তার পিতা আলহাজ্ব বকসু সওদাগর খুটাখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রতিষ্টাতা, উপদেষ্টা এবং সাবেক মেম্বার ছিলেন। এম বেলাল অাজাদ ইউনিয়ন আ’লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও তিনি ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি, চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারন সম্পাদক, লোহাগাড়া বার আউলিয়া ডিগ্রি কলেক ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এবং খুটাখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তার বড় ভাই ডাঃ মোঃ হোছাইন চৌধুরী একজন বীর মুক্তিযুদ্ধা। অপর ভাই আবদুস ছোবহান খুটাখালী ৬ নং ওয়ার্ড আ’লীগের সহ-সভাপতি। ছোট ভাই শওকত আলী ছিলেন সাবেক সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও সাবেক প্রচার সম্পাদক খুটাখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ। ভাই পুত্র শাহাজাহান চৌধুরী সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক, খুটাখালী আওয়ামীলীগ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক খুটাখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ। অপর ভাই পুত্র দেলোয়ার হোসাইন, সাবেক সভাপতি খুটাখালী ৬নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগ ও সাবেক সহ-সম্পাদক চট্রগ্রাম সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ। ভাই পুত্র মোঃ সাজ্জাদ হোসাইন সাবেক সদস্য,চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ ও সাবেক সভাপতি খুটাখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ। ভাই পুত্র তাহমিম শওকত তাহিম, খুটাখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের একনিষ্ট কর্মী।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।





আপনার মতামত লিখুন :