১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১ আশ্বিন, ১৪২৬ | ১৬ মুহাররম, ১৪৪১


চকরিয়ায় জন্মসনদ নিতে এসে শ্লীলতাহানির শিকার দুই বোন

চকরিয়া পৌরসভায় জন্মনিবন্ধন নিতে গিয়ে দুই বোনকে প্রকাশ্যে শাড়ি খুলে বিবস্ত্র করে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছে দুই বখাটে যুবক।রোববার (১৪ জুলাই) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে চকরিয়া পৌরসভা কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। পরে উপস্থিত লোকজন বখাটেদের পাকড়াও করে চকরিয়া থানা পুলিশে সোপর্দ করেছেন।

দুই বখাটে যুবক হলো- চকরিয়া পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ড কোচপাড়া এলাকার মনজুরুল হকের ছেলে আরিফুল ইসলাম (২২) ও মোহাম্মদ হোছনের ছেলে তানজিন হোসেন তুহিন (২১)।প্রত্যক্ষদর্শী লোকজন সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সাড়ে ১২টার দিকে চকরিয়া পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের দুই বোন পৌরসভা কার্যালয়ে জন্মনিবন্ধন সনদ নিতে যায়। ওই সময় তাদের সাথে থাকা একজনের স্বামী কে ৮নম্বর ওয়ার্ড কোচপাড়া এলাকার দুই বখাটে মারধর করে।

এ সময় স্বামীকে উদ্ধারে এগিয়ে এলে দুই বোনকে টেনে হিচঁড়ে শাড়ি খুলে বিবস্ত্র করে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে বখাটে যুবকরা। পরে তারা নিজের সম্ভ্রম বাচাঁতে পৌরসভার একটি কক্ষে গিয়ে আশ্রয় নেয়। পরে উপস্থিত লোকজন দুই বখাটে যুবককে পাকড়াও করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।চকরিয়া পৌরসভার মেয়ার আলমগীর চৌধুরী বলেন, এটি একটি ছোট ঘটনা। দুইপক্ষকে আপোস করে দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে, দুই বোনের শ্লীলতাহানির ঘটনা বিষয়ে পৌরসভার সচিব মাসউদ মোরশেদ থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এসব কথা না বলে আপনার মত আরো ৫০/৫১ জন সাংবাদিক আছে,তারা আমার মেয়র এর সাথে দেখা করে সবকিছু ঠিক করে নেয়।

কিন্তু আপনি তাদের থেকে বড় নাকি। আপনি বসে ঠিক করে নেন। এসব লিখলে আমার কিছু হবে আমি এই পৌরসভায় এক যুগধরে চাকরি করি। ক্ষমতা না থাকলে এক জায়গায় এতদিন থাকা যায়।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হাবিবুর রহমান বলেন, ঘটনাটি জানার পরপরই পুলিশ পাঠানো হয়। এ ঘটনায় আক্রান্ত নারীর স্বামী সাকেরুল ইসলাম বাদী হয়ে মারধর, হত্যাচেষ্টা ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ এনে একটি এজাহার দায়ের করেছেন। এটি মামলা হিসেবে এন্ট্রি করা হয়েছে। আটককৃতদের মামলায় দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।





আপনার মতামত লিখুন :

error: Content is protected !!