১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১ আশ্বিন, ১৪২৬ | ১৬ মুহাররম, ১৪৪১


টেকনাফে বন্দুক যুদ্ধে সাবরাং ও খুনিয়া পালংয়ের দুই মাদক কারবারী নিহত

টেকনাফে র‌্যাবের মাদক বিরোধী অভিযানে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় সাবরাং ও রামু খুনিয়া পালংয়ের দুই মাদক কারবারী গুলিবিদ্ধ হযে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। এসময় অস্ত্র, বুলেট, ইয়াবাসহ একটি প্রাইভেট কার উদ্ধার করা হয়েছে। এঘটনায় আহত হয়েছে র‌্যাবের চারজন সদস্য।জানা যায়, র‌্যাব-২ এর একটি চৌকষ আভিযানিক দল ২৯ জুলাই ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মেরিন ড্রাইভ সড়কে মাদক উদ্ধার অভিযানে আসে।

এসময় মাদক কারবারী সিন্ডিকেটের একটি স্বশস্ত্র র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করলে র‌্যাবের ৪জন সদস্য আহত হয়। র‌্যাব ও আতœরক্ষা ও সরকারী সম্পদ রক্ষার্থে পাল্টা গুলিবর্ষণ করে।কিছুক্ষণ পর গুলিবর্ষণকারী দূৃর্ত্তরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থল তল্লাশী করে ৩০০ বোতল ফেন্সিডিল, ৪০০০ ইয়াবা, একটি বিদেশী পিস্তল, ৪ রাউন্ড বুলেট সহ গুলিবিদ্ধ দুই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরন করা হলে সেখানে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যায়।

নিহতরা হচ্ছেন সাবরাং লেজির পাড়ার বশির আহমদের পুত্র আব্দুর রহমান (৪২) ও রামু উপজেলার খুনিয়া পালংয়ের পূর্ব গোয়ালিয়া পাড়ার কবির আহমদের পুত্র ওমর ফারুক (৩১)।

অভিযান পরিচালনাকারী কর্মকর্তা র‌্যাব ২ এর সহকারী পুলিশ ‍সুপার মহিউদ্দিন ফারুক সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করে টেকনাফ টুডে কে জানান, নিহতদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ৮-৯ টি মামলা রয়েছে। দীর্ঘদিন যাবৎ এই চক্রটি টেকনাফ থেকে ঢাকায় ইয়াবা সরবরাহ করে আসছিলেন। এই গ্রুপের বেশ কয়েকজন সদস্য বিভিন্ন সময় র‌্যাব ২ এর হাতে আটক হন। একপর্যায়ে তাদের গতিবিধি ফলো করে টেকনাফে অভিযানে আসেন। সেখানেই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এই ব্যাপারে র‌্যাব বাদী হয়ে টেকনাফ থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।





আপনার মতামত লিখুন :

error: Content is protected !!