১৪ অক্টোবর, ২০১৯ | ২৯ আশ্বিন, ১৪২৬ | ১৪ সফর, ১৪৪১


বিবিএন শিরোনাম
  ●  র‌্যাবের সঙ্গে গোলাগুলিতে যুবলীগ নেতা নিহত   ●  নাইক্ষ্যংছড়ির তিন ইউপির ভোট আজ : বহিরাগত ঠেকাতে বারটি তল্লাশিচৌকি   ●  কক্সবাজারে শতাধিক বৌদ্ধ বিহারে প্রবারণা উৎসব শুরু   ●  আলীকদমে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ২, আহত ১৩   ●  মহেশখালীতে জাতীয় দুর্যোগ প্রশমন দিবস উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্টিত   ●  আঘাত হেনেছে প্রলয়ঙ্করী টাইফুন, নিহত ১১   ●  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের কাজ করবে সেনাবাহিনী- কক্সবাজারের সেনাপ্রধান   ●  যুবলীগের প্রত্যেককে ভালো মানুষ ও ভালো নেতা-কর্মী হতে হবে : সোহেল আহমদ বাহাদুর   ●  রোহিঙ্গাদের যারা ভোটার করবে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে : অতিরিক্ত সচিব   ●  যুক্তরাষ্ট্রের ব্রুকলিনে বন্দুক হামলা, নিহত ৪

‘তুই’ সম্বোধন করায় সৈকতে পর্যটককে পেটালেন ফটোগ্রাফার

মোস্তাকিম নামে এই পর্যটককে মারধর করে সৈকতের এক ফটোগ্রাফার। ছবি- প্রতিবেদক

আজিম নিহাদ:

‘তুই’ সম্বোধন করায় সমুদ্র সৈকতে পর্যটককে পিটিয়েছে এক ফটোগ্রাফার। আহত পর্যটকের নাম মো. মোস্তাকিম (২৭)। গতকাল শুক্রবার দুপুর ১ টার দিকে সমুদ্র সৈকতের ডায়বেটিক পয়েন্টে এঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, শুক্রবার বেলা ১১ টার দিকে পেকুয়া ও চকরিয়া উপজেলার বিভিন্ন ভেটেনারি ওষুধ কোম্পানীতে কর্মরত ৮০ জন এক সঙ্গে সমুদ্র সৈকতে আনন্দ ভ্রমণে আসেন। তাদের গাড়ি ডায়বেটিক পয়েন্টে পার্কিং করে সেখান থেকে দল বেঁধে সমুদ্র সৈকতে নামেন।

এদের মধ্যে দুপুর ১ টার দিকে মোস্তাকিম এক ফটোগ্রাফারকে ডেকে ‘তুই’ সম্বোধন করে ছবি তুলতে বলেন। ‘তুই’ সম্বোধন করায় ক্ষেপে যান ওই ফটোগ্রাফার। এসময় ওই ফটোগ্রাফারের সাথে কথা কাটাকাটি হয় মোস্তাকিমের।

এক পর্যায়ে মোস্তাকিমকে কিটকট চেয়ারের বাটাম (চেয়ার তৈরীর জন্য এক ধরণের কাঠের অংশ) দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে ওই ফটোগ্রাফার। পরে উপস্থিত অন্যান্যরা এগিয়ে এসে ওই ফটোগ্রাফারের হাত থেকে পর্যটক মোস্তাকিমকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। এসময় পাশের একটি দোকানে ক্যামরা রেখে পালিয়ে যান ওই ফটোগ্রাফার।

আহত পর্যটক মোস্তাকিম (২৭) জানান, ছবি তোলার জন্য শুধুমাত্র ‘তুই’ সম্বোধন করায় ফটোগ্রাফার তাঁকে মারধর করে। তিনি কপালে, ডান পায়ে ও পিটে মারাত্মক জখম পেয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, হামলার সময় ওই ফটোগ্রাফার অন্য এক ফটোগ্রাফারকে পাশের দোকান থেকে তার অস্ত্র বের করতে বলেন। অস্ত্রের কথা শুনে তাঁর সঙ্গে ভ্রমনে আসা অন্যান্যরা ভয় পেয়ে যান।
আহত মোস্তাকিমের সঙ্গে ভ্রমনে আসা জিয়াবুল করিম জানান, দিনদুপুরে এই ধরণের ঘটনায় তারা শঙ্কিত। এত গুরুত্বপূর্ণ একটি পয়েন্টে কোথাও ট্যুরিষ্ট পুলিশের দেখা মিলেনি। যদি সৈকতের নিরাপত্তা ব্যবস্থা এই ধরণের হয়, তাহলে পর্যটকেরা আসার সাহস পাবে কেমনে?

সৈকতের ডায়বেটিক পয়েন্টের ঝুপড়ি দোকানদার দোলন ধর (৫২) বলেন, পর্যটককে যে মারধর করেছে তার নাম রফিকু হাসান (২২)। তাঁর বাড়ি সমিতিপাড়া এলাকায়। তিনি তালিকাভুক্ত ফটোগ্রাফার নন। বদিউল আলম নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে ক্যামেরা ভাড়া নিয়ে ছবি তুলে মাঝেমধ্যে।

তিনি আরও বলেন, এর আগেও বিভিন্ন পর্যটকের সাথে খারাপ আচরণ করেছে রাকিব। এমনকি মারধরও করে অনেক সময় পর্যটকদের জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেয়। এই পয়েন্টে ট্যুরিষ্ট পুলিশের টহল না থাকাতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সে।

সৈকতে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত জেলা প্রশাসনের বীচ কর্মীদের ইনচার্জ মাহবুব জানান, খবর পেয়ে দ্রুত গিয়ে তারা ম্যাজিষ্ট্রেটের নির্দেশে ক্যামেরাটি জব্দ করেন। তবে ওই ফটোগ্রাফার পালিয়ে যাওয়ায় তাকে আটক করা সম্ভব হয়নি। ওই সময় আহত পর্যটকের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ নেওয়া হয়।

পর্যটন শাখার দায়িত্বে নিয়োজিত জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফুল ইসলাম বলেন, বীচকর্মীদের মাধ্যমে ক্যামরাটি তাৎক্ষণিক জব্দ করা হয়। এই ক্যামরাটি জেলা প্রশাসনের অনুমোদিত নয়। হামলাকারিকে খোঁজা হচ্ছে।

জানা গেছে, অন্যান্য পয়েন্টের মত সৈকতের ডায়বেটিক পয়েন্টেও প্রতিদিন শত শত পর্যটক ভীড় করে। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এই পয়েন্টে ট্যুরিষ্ট পুলিশের কোন টহল দল সহজেই দেখা মিলে না। এই সুযোগে অপরাধীরা সক্রিয় রয়েছে এই পয়েন্টে। আর এতে নিয়মিত ছিনতাইসহ নানা অপরাধের শিকার হচ্ছে পর্যটকেরা। যদিও নিয়মত অনুযায়ী এই পয়েন্টে ট্যুরিষ্ট পুলিশের একটি টহল দল থাকার কথা।

এছাড়া সৈকতে পর্যটকদের সেবায় দ্রুত সাড়া দেওয়ার জন্য ট্যুরিষ্ট পুলিশকে বালুচরে চলনসই গাড়িও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এসব গাড়ি পুলিশ ব্যবহার করে তাদের ব্যক্তিগত অতিথিদের জন্য। যদিও এসব দেওয়া হয়েছে পর্যটকদের তাৎক্ষণিক সেবা দিতে। এমন অভিযোগ পর্যটক ও পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।





আপনার মতামত লিখুন :