২২ আগস্ট, ২০১৯ | ৭ ভাদ্র, ১৪২৬ | ২০ জিলহজ্জ, ১৪৪০


বিবিএন শিরোনাম
  ●  টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ রোহিঙ্গা নিহত   ●  শরণার্থীদের অনাগ্রহে এবারও হলো না রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন   ●  ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত করা হবে : প্রধানমন্ত্রী   ●  মিয়ানমারে বিদ্রোহীদের হামলায় ৩০ সেনা নিহত   ●  মাতামুহুরী নদী থেকে দুই হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল জব্দ   ●  চৌফলদন্ডীতে পুলিশের উপর হামলা করে ইয়াবা ব্যবসায়ী ছিনতাই, আহত ২   ●  ঈদগাঁওতে সৌদিয়া পরিবহনের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত   ●  জালালাবাদ থেকে দুই ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ   ●  চকরিয়ায় সার্ফারী পার্কে প্রশিক্ষিত হাতির আঘাতে মাহুত নিহত   ●  বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের প্রধান আসামী জিয়াউর রহমানকে ইতিহাস ক্ষমা করেনি-এমপি কমল

পেকুয়ায় বিয়ের ফাঁদে ছাত্রীর সাথে শঠামি, ওস্তাদের বিরুদ্ধে মামলা

পেকুয়ায় বিয়ের ফাঁদে ফেলে উম্মে সায়মা নামক ৯ম শ্রেনীর ছাত্রীর সঙ্গে সটামি করছে শিক্ষক। উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের মাঝেরঘোনা গ্রামের মাও: জাকের উল্লাহর মেয়ে উম্মে সায়মা। মাদ্রাসায় অধ্যয়নের সময় চকরিয়া উপজেলার বানিয়ারছড়া ইসলামনগর গ্রামের মাও: আবদু রহিম বোখারীর ছেলে মাও: ফয়েজুল ইসলাম বোখারীর সঙ্গে পরিচয় হয়। ফয়েজুল ইসলাম একই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ। উম্মে সায়মা ওই মাদ্রাসার ছাত্রী।দুরন্ত প্রতারণা ও নষ্টামীর বিরুদ্ধে ছাত্রী এবার ওই ওস্তাদ স্বামীর বিরুদ্ধে গত বছরের ৩ ডিসেম্বর মামলা দায়ের করেছে। মামলা নং সিআর ১৩৩০/১৮। চকরিয়া সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে নালিশি অভিযোগে ছাত্রী ওই কিশোরী আর্জিতে জানায়, বিয়ের প্রলোভনে ওই ব্যক্তি আমার সাথে চরম প্রতারণা করছিলেন। আমি ছাত্রী। একটি মাদ্রাসায় পড়ালেখা করছিলাম।

এর সুত্র ধরে মাদ্রাসার শিক্ষক ও আমার মধ্যে মন দেয়া নেয়া হয়। ভাব ও মন দেয়া নেয়ার সুত্র ধরে আমরা দু’জনের মধ্যে গভীর প্রেমের সম্পর্ক হয়। তিনি প্রাপ্ত বয়ষ্ক। তবে অবিবাহিত। আমি ছাত্রী বয়সে কিশোরী। ছাত্রী ও শিক্ষকের প্রেম কাহিনী ও বাস্তবতা লাইলী মজনুর প্রেম সমাধিকে হার মানায়। অত:পর আমরা দু’জন মনস্থির করি। সুখের নীড় গড়তে আমরা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হব। ওস্তাদ ও আমি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছি। আকদ ও কাবিননামা সম্পাদন হয়েছে। স্বামী-স্ত্রী দাম্পত্য জীবন কিছুদিন অতিবাহিত করেছি। তবে কিছুদিন পর স্বামী যৌতুক প্রস্তাব করে। কাবিন সম্পাদনের সময় ১লক্ষ ৩০ হাজার টাকা আমার পিতা দিয়েছে।

ওই টাকা মালয়েশিয়া যাওয়ার কথা বলে নিয়েছে। কথা ছিল আমাকে আনুষ্টানিক শাশুড় বাড়ীতে নিয়ে যাবে। তবে স্বামীর সংসারে না নিয়ে কালক্ষেপন করছিলেন। শাশুড় বাড়ি নিয়ে যেতে আমি স্বামীকে চাপ প্রয়োগ করলে তিনি ফের ১ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করে। আমাকে নিয়ে যাওয়া হয়নি। স্থানীয়ভাবে দু’পক্ষ বৈঠকও বসে। কোন ধরনের সুরাহা হয়নি স্বামী মালয়েশিয়াও যায়নি। স্ত্রীর মর্যাদা দাবীতে শাশুড় বাড়িতে গিয়ে বিষপান করি। চট্টগ্রাম মেডিকেলে ১০ দিন চিকিৎসাধীন ছিলাম। স্বামী ১ জন সট প্রতারক। আমি প্রতারিত হয়েছি। আমাকে বার বার প্রলোভনে ফেলেছে। সংসারে নিবে বলে বার বার প্রতারণা করে। আমি চকরিয়ার বানিয়ারছড়া ইমাম বোখারী (রা:) মাদ্রাসার ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী। স্বামী ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ। সেখানে দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক অত:পর বিয়ে হয়। আমি ওই মাদ্রাসার হোষ্টেলে থাকতাম। বিয়ের পর আমাকে ওই মাদ্রাসা ছাড়তে হয়। স্বামী কক্সবাজার আদর্শ কামিল মাদ্রাসায় ভর্তি করে। সেখানে ১ বছর পড়ালেখা করি। ঢাকা টঙ্গী মাদ্রাসায় ৯ম শ্রেনীতে ভর্তি করায়। সেখানেও ১ বছর ছিলাম।

সর্বশেষ বাঁশখালী টাইমবাজার আল হুমায়রা বালিকা মাদ্রাসায় ভর্তি করে।এ ভাবে ৪ টি মাদ্রাসায় আমাকে পড়ালেখার জন্য নিয়ে যায়। এ সব ছিল তার কৌশল। বাঁশখালীর ওই মাদ্রাসা থেকে শাশুড় বাড়ী নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বাঁশখালী ওই মাদ্রাসা থেকে আমাকে নিয়ে যায়। চাচা পরিচয় দিয়ে স্বামী হোস্টেল থেকে বের করে। শাশুড় বাড়ীতে নেয়নি। গাড়ীতে করে চট্রগ্রামে নিয়ে যায়। শহরের নিউ মার্কেটের সামনে রেখে সটকে পড়ে। আমি কোতায়ালী থানায় আশ্রয় নিয়েছিলাম।

জানা গেছে, ফয়েজুল ইসলামের সাথে ২০১৭ সালের ১৮ জানুয়ারীতে দেড় লক্ষ টাকা মোহরনায় উম্মে সায়মার বিয়ে হয়। এ দিকে স্ত্রীর মর্যাদা ও স্বামীর অধিকার পেতে মাদ্রাসা ছাত্রী উম্মে সায়মা বিচার নিয়ে ঘুরছে প্রশাসন ও মানুষের দ্বারে দ্বারে। সরল বিশ্বাসে প্রেম ও বিবাহ হয়েছে ওস্তাদের সঙ্গে। এ বিয়ে তার সুখ বয়ে আনেনি। স্বামীর প্রতারিত ওই নারী এখন চরম দিশেহারা। নেই কোন সমাধান। শাশুড় বাড়ী ও স্বামীর সংসার মেয়েটির কপালে জুটেনি।

এ ব্যাপারে বানিয়ারছড়া ইমাম বোখারী (রা:) মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ফয়েজুল ইসলাম জানায়, কোন ধরনের বিয়ে হয়নি। এ সব আমার নামে অপপ্রচার। টাকা নিয়েছি এর কোন প্রমাণ নেই। পত্রিকায় লিখলে সমস্যা নেই। লিখেন আমার নাম পেপারে উঠুক। আমাকে আরও বেশী করে চিনবে ও জানবে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।





আপনার মতামত লিখুন :