২১ অক্টোবর, ২০১৯ | ৫ কার্তিক, ১৪২৬ | ২১ সফর, ১৪৪১


বিবিএন শিরোনাম

মহেশখালীতে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ছাত্রীকে কোপালো বখাটে, তোলপাড়

নিজস্ব প্রতিনিধি#

মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়ায় প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় নাহিদা আক্তার (১৫) এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে সারা কুপিয়ে জখম করেছে বখাটে। গত শনিবার বিকালে এই নিষ্ঠুর এই ঘটনা ঘটে।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কালারমারছড়া আর্দশ দাখিল মাদ্রাসার ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী ও ফকিরজুম পাড়ার মোঃ হোছাইন এর মেয়ে নাহিদা আক্তারকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিল হোয়ানক পুর্ব হরিয়ার ছড়া এলাকার মৌঃ লোকমান হাকিমের পুত্র বখাটে জাহেদুল ইসলাম। প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে গত শনিবার বিকালে মেয়ে বাড়িতে গিয়ে অর্তকিতভাবে  নাহিদাকে কিরিচ দিয়ে কোপায় ওই বখাটে। নাহিদার শরীরে ১০ থেকে ১২টি কিরিচের কোপ তার শরীরে লাগে। মুখে ও কপালে দু’টি আশঙ্কাজনক কোপ লাগে। আহত নাহিদাকে প্রথমে মহেশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে কক্সবাজার সদর হাসাপাতালে প্রেরন করেন চিকিৎসক।  সে এখন সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) সোলতান আহামদ সিরাজী জানান, নাহিদার মুখের ও কপালের কোপ অত্যন্ত মারাত্মক। অন্যান্য আঘাতগুলোও কম নয়। তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এই ঘটনাটি নিয়ে মহেশখালীতে তোলপাড় শুরু হয়েছে। এমনকি সংবাদ মাধ্যমে প্রচার হলে পুরো দেশে তা নিয়ে আলোচনা চলছে। ঘটনাটি সিলেটের আলোচিত খদিজা হামলার চেয়ে কম নয় বলে মনে করছেন  মানুষ। তাই বখাটে জাহেদুলকে দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবী করেছে সাধারণ মানুষ। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, ‘এই ঘটনায় মেয়ের বাবা বাদী হয়ে জাহিদুল ইসলামকে প্রধান আসামী করে ৭ জনের বিরুদ্ধে মহেশখালী থানায় মামলা দায়ের করেছে। হামলাকারী বখাটে জাহদুল ইসলামকে গ্রেফতার করতে কয়েক বার অভিযান চালানো হয়েছে। বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ায় তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে। যে করেই হোক খুব কম সময়ে তাকে গ্রেফতার করা হবে। 

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।





আপনার মতামত লিখুন :